স্যাঁতস্যাঁতে দেয়াল: কেন করবেন ড্যাম্পপ্রুফিং?

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

আমাদের সবার বাসার একটি অতি পরিচিত সমস্যা হলো, বাসাবাড়ির দেয়াল স্যাঁতস্যাঁতে হয়ে যাওয়া। আমাদের দেশের বাতাসে জলীয়বাষ্পের আধিক্য, অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত এবং মাটি বা লিক হওয়া প্লাম্বিং পাইপ থেকে পানি এসে আপনার বাসা-বাড়ির দেয়াল স্যাঁতস্যাঁতে করে তুলতে পারে। ফলে প্লাস্টার উঠে যায়, স্ট্রাকচার দুর্বল হয়ে যায়- সর্বোপরি বাসার ভেতর এবং বাইরে থেকে দেখতে খারাপ লাগে।

এসব সমস্যা থেকে পরিত্রাণ পেতে বাসা-বাড়ি খুব ভালোভাবে ড্যাম্পপ্রুফ করতে হবে। আমাদের দেশের অধিকাংশ ঘরবাড়ি স্যাঁতস্যাঁতে, যার ফলস্বরূপ অনেকেই এই সমস্যার ভুক্তভোগী। আসুন জেনে নেই কীভাবে আমাদের বাসার ভেতর এবং বাইরে আমরা সঠিকভাবে ড্যাম্পপ্রুফ করতে পারব।

ড্যাম্পপ্রুফিং কী ও কেন করা হয়?

ড্যাম্পপ্রুফিং বা নির্মাণে ড্যাম্পপ্রুফ করা হলো অভ্যন্তরের জায়গাগুলোতে আর্দ্রতা যাতে না যায়, সেজন্য দেয়াল এবং মেঝে নির্মাণের জন্য এক ধরনের আর্দ্রতা নিয়ন্ত্রক ব্যবস্থার প্রয়োগ করা। ফাউন্ডেশন বা মাটির সংস্পর্শে থেকে যাতে বাসার স্ট্রাকচারাল মেম্বারগুলো, ছাদ ও দেয়ালে আর্দ্রতা না আক্রমণ করে সেজন্য আমাদেরকে ড্যাম্পপ্রুফ করতে হয়। কী কী কারণে মূলত ড্যাম্প হয় তা আসুন দেখে নিই।

বায়ুর আর্দ্রতা

জলীয়বাষ্পের ঘনীভবন ডাবল-গ্লেজিংয়ের মতো পুরানো দালানগুলোতে বায়ুচলাচল হ্রাসকারী শক্তিসঞ্চয়ের ব্যবস্থাগুলো আপেক্ষিক আর্দ্রতা বাড়ায়। স্নান, রান্না করা, ধোয়া-মোছা এবং আধুনিক জীবনযাপনের নানা সরঞ্জাম থেকে আর্দ্রতা উঠে, যা প্রচুর পরিমাণে জলীয়বাষ্প তৈরি করে।

অনুপ্রবেশ ড্যাম্প

ছাদ, চিমনি, প্যারাপেটস এবং কোনো ভবনের অন্যান্য উন্মুক্ত অংশ বৃষ্টির প্রবেশের পক্ষে সবচেয়ে বেশি সংবেদনশীল, বিশেষত যেখানে রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্রবেশ কঠিন। ছাদে জংশনগুলো সম্ভাব্য সমস্যার স্পট যেমন- ত্রুটিযুক্ত সীসা ফ্ল্যাশিং, মর্টার ফিলেটস, রিজেস বা হিপসহ এরকম জয়নিং জায়গাগুলো। দীর্ঘস্থায়ী জলাবদ্ধতা এবং দেয়ালের স্যাঁতস্যাঁতে ভাব বাজে মেন্টেইনেন্সের জন্যও হতে পারে।

স্যাঁতস্যাঁতে ভাবের দেয়ালে হেয়ারলাইন ফাটলগুলো নির্দেশ করে এবং অবিচ্ছিন্নভাবে আর্দ্রতা স্বীকার করে যে, সেখানে সিমেন্ট মর্টারটি চুনের পরিবর্তে মেরামত করার জন্য ব্যবহৃত হয়েছে।

অভ্যন্তরীণ স্পিলেজ

উপচে পড়া স্নান বা ঝরনা, পাইপ ফেটে যাওয়া, ধীরে ধীরে পাইপের জয়েন্টগুলো ভেঙে যাওয়া, ওয়াশিং মেশিন বা ডিশ ওয়াশারগুলো থেকে লিক হওয়া এবং দুর্ঘটনাজনিত ক্ষতির কারণে।

মাটির নিচের স্যাঁতস্যাঁতে ভাব

এটি এখন সাধারণত এত বেশি হয় না আবার একদম হয় না এরকমও না। এই সমস্যার ফলে মেঝে স্যাঁতস্যাঁতে হয়ে ওঠে যেখানে নিচ থেকে আর্দ্রতার বাষ্পীভবনটি ভিনাইল শিট, রাবার-ব্যাকড কার্পেট বা অন্যান্য খসখসে আবরণ দ্বারা বাধা দেওয়া হয়।

এবার আসুন জেনে নেই এই আর্দ্রতার ফলে দালানে কী কী সমস্যা উদ্ভূত হতে পারে।

১. কাঠের সামগ্রী পচে যাওয়ার কারণ হয়।

২. মেটাল জাতীয় বস্তুতে মরিচা পড়ার কারণ হয়।

৩. ইলেক্ট্রনিক সামগ্রীর নষ্ট হওয়ার কারণ হয়।

৪. মেঝে ও দেয়ালে দাগ পড়ে।

৫. প্লাস্টার নষ্ট হয়।

৬. রং নষ্ট বা ব্লিচিং হয়।

৭. ইট, টাইলস বা পাথরের উপরের স্তর ক্ষতিগ্রস্থ হয়।

৮. বসবাসকারীদের স্বাস্থ্যর জন্য ক্ষতিকারক।

৯. দালানের স্ট্রাকচারকে দুর্বল করে দেয়।

১০. উইপোকার উপদ্রব বৃদ্ধি পায়।

কীভাবে প্রতিরোধ করা যায়?

বিভিন্ন পদ্ধতিতে বাসার এই স্যাঁতস্যাঁতে ভাবের সমস্যা সমাধান করা যায়। এরমধ্যে বিভিন্ন ম্যাটেরিয়াল ব্যবহার করে অথবা নির্মাণকালেই বিভিন্ন পদ্ধতি ব্যবহার করে বাসাবাড়িতে ড্যাম্পপ্রুফিং করা হয়। আসুন জেনে নিই কী কী উপায়ে বাসাবাড়িতে ড্যাম্পপ্রুফিং করা সম্ভব হয়।

মেমব্রেন ড্যাম্প প্রুফিং

এই পদ্ধতিতে স্যাঁতস্যাঁতে উৎস এবং তার সংলগ্ন ভবনের অংশের মধ্যে একটি জল প্রতিরোধের ঝিল্লি বা ড্যাম্প প্রুফ কোর্স (D.P.C.) চালু করা হয়। ডিপিসিতে নমনীয় উপকরণ যেমন- বিটুমেন, ম্যাস্টিক অ্যাসফল্ট, বিটুমিনাস ফেল্টস, প্লাস্টিক বা পলিথিন শীট, ধাতব শীট, সিমেন্ট কংক্রিট থাকতে পারে।

ড্যাম্প প্রুফিংয়ের পদ্ধতিগুলোর জন্য ডিপিসি আনুভূমিকভাবে বা উল্লম্বভাবে মেঝে, দেয়াল ইত্যাদিতে প্রবর্তন বা স্থাপন করা যেতে পারে। ড্যাম্প প্রুফিং কোর্স সরবরাহিত বেসমেন্টকে সাধারণত ‘ট্যাঙ্কিং’ বলা হয়।

ডিপিসি সরবরাহ করার সময় নিম্নলিখিত বিষয়গুলো মাথায় রাখা উচিৎ:

১. ডিপিসির রেন্ডারিং বাদ দিয়ে দেয়ালের পুরো প্রস্থ ঢাকা থাকা উচিৎ।

২. ডিপিসির জন্য ব্যবহৃত মর্টারটি সমতল হওয়া উচিত যাতে স্যাঁতস্যাঁতে প্রুফ কোর্সটি ক্ষতিগ্রস্থ না হয়।

৩. ডিপিসি এমনভাবে স্থাপন করা উচিত যাতে ধারাবাহিকভাবে প্রজেকশন সরবরাহ করা হয়।

৪. জংশন এবং দেয়ালের কোণে ডিপিসি সরবরাহ করার সময়, অনুভূমিক স্যাঁতস্যাঁতে প্রুফ কোর্সটি অবিচ্ছিন্নভাবে স্থাপন করা উচিৎ।

৫. যখন অনুভূমিক ডিপিসি একটি উল্লম্ব মুখ অবিরত করা হয়, জংশনে ৭.৫ সেন্টিমিটার ব্যাসার্ধের একটি সিমেন্ট কংক্রিট ফিললেট সরবরাহ করা উচিৎ।

৬. মেঝে, দেয়াল বা ছাদ থেকে জল উত্তীর্ণের সম্পূর্ণ এবং অবিচ্ছিন্ন বাধা নিশ্চিত করার জন্য দুটি স্যাঁতস্যাঁতে প্রুফ কোর্সের মধ্যে অবিচ্ছিন্ন সঠিক সম্পর্ক বজায় রাখা উচিত।

৭. এটি নিশ্চিত করতে হবে যে, প্রাচীরের পৃষ্ঠের বাইরে কোনো স্যাঁতস্যাঁতে প্রুফ কোর্স নেই; অন্যথায়, এটি প্রাচীর সমাপ্তির সময় ক্ষতিগ্রস্থ হতে পারে।

অভ্যন্তরীণ ড্যাম্প প্রুফিং

ড্যাম্প প্রুফিংয়ের এই পদ্ধতিতে, কিছু ওয়াটারপ্রুফিং যৌগ কংক্রিটের মিশ্রণে যুক্ত করা হয়, যাতে এটি দুর্ভেদ্য হয়। নিচে কিছু জলরোধী যৌগিক অভ্যন্তরীণ স্যাঁতস্যাঁতে প্রুফিংয়ের জন্য ব্যবহার করা যেতে পারে। চক, টালক, ফুলারস আর্থ থেকে তৈরি যৌগগুলো, যা যান্ত্রিক কর্ম নীতির অধীনে কংক্রিটের শূন্যস্থান পূরণ করতে পারে।

সাবান, পেট্রোলিয়াম, তেল, ফ্যাটি অ্যাসিড যৌগিক যেমন স্টেরেটস ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম, অ্যামোনিয়া ইত্যাদি জলের বিকর্ষণ নীতিতে কাজ করে। এই যৌগটি একটি মিশ্রণের সাথে মিশ্রিত হয়ে গেলে কংক্রিটটি জলের প্রতিরোধে পরিণত হয়।

বাণিজ্যিকভাবে উপলভ্য যৌগগুলো যেমন পাবলো, পারমো এবং সিলকা ইত্যাদি সিমেন্টে যুক্ত রাসায়নিক যৌগের পরিমাণ নির্মাতার সুপারিশের উপর নির্ভর করে। সাধারণ ওয়াটারপ্রুফিং কাজের জন্য মর্টার বা কংক্রিটের জলরোধী রেন্ডার করতে সিমেন্টের এক ব্যাগ প্রতি ১ কেজি রাসায়নিক যৌগ।

সারফেস ট্রিটমেন্ট

অভ্যন্তরীণ ফিনিশে, আর্দ্রতা ফিনিশিংয়ে ব্যবহৃত উপাদানগুলোর ছিদ্রগুলোর মধ্যে দিয়ে তার পথ সন্ধান করে। ছিদ্রগুলোতে আর্দ্রতার প্রবেশ রোধ করতে তাদের অবশ্যই পূরণ করতে হবে। পৃষ্ঠের আর্দ্রতা প্রবেশ সীমাবদ্ধ করতে জলপৃষ্ঠ থেকে দূষিত পদার্থ বা যৌগের একটি স্তর এই পৃষ্ঠগুলোতে প্রয়োগ করা হয়, যার মাধ্যমে আর্দ্রতা প্রবেশ করে।

ক্যাভিটি দেয়াল

ক্যাভিটি দেয়াল নির্মাণের পদ্ধতি স্যাঁতস্যাঁতে প্রতিরোধের একটি কার্যকর পদ্ধতি। এর মধ্যে প্রধান বাহ্যিক প্রাচীরটি বাইরের ত্বকের প্রাচীর দ্বারা রক্ষা করা হয়, উভয়ের মধ্যে গহ্বর রেখে। গহ্বরটি দেয়ালের মধ্যে একটি ফাঁক ফেলে দেয় যা আর্দ্রতাটিকে বাইরের থেকে অভ্যন্তরের প্রাচীরের দিকে যাত্রা করতে বাধা দেয়।

গুনিট

গুনিটিং-এ, উন্মুক্ত স্যাঁতস্যাঁতে জলের চাপ প্রতিরোধের জন্য জলরোধী বা পাইপ, জলাশয় ইত্যাদির জন্য উন্মুক্ত পৃষ্ঠগুলোর উপর চাপের মধ্যে সমৃদ্ধ সিমেন্ট মর্টারের একটি অভেদ্য স্তর দিয়ে কভার করা হয়।

গুনিটিং মেশিনের গুটিং বা মিক্স অপারেশনের স্প্রেটি সিমেন্ট বন্দুক হিসাবে পরিচিত একটি মেশিন ব্যবহার করে বাহিত হয়। এই সিমেন্ট বন্দুক মেশিনে ৫০ মিমি ডায়া নমনীয় পায়ের পাতার মোজাবিশেষ পাইপের মাধ্যমে চাপের মধ্যে মিশ্রণটি চাপানোর জন্য মেশানো উপকরণ এবং একটি সংকোচকের ব্যবস্থা রয়েছে। একটি অগ্রভাগ পায়ের পাতার মোজাবিশেষের মুক্ত প্রান্তে স্থির করা হয় যেখানে একটি পৃথক সংযোগের মাধ্যমে চাপের মধ্যে জল সরবরাহ করা হয়।

এভাবেই একটি বাসায় বিভিন্ন পদ্ধতিতে ড্যাম্পপ্রুফিং করা হয়, যা এক্সপার্টের সহায়তায় বাসায় ব্যবহার করলে আমাদের বাসা থাকবে দীর্ঘসময় ধরে সুস্থ এবং স্বপ্নীল।

1 Comment

  1. একটি প্রয়োজনীয় বিষয়ে লিখেছেন। ধন্যবাদ।


Add a Comment

বাড়ি বানাতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের জন্য একটি পরিপূর্ণ ওয়েব পোর্টাল- হোম বিল্ডার্স ক্লাব। একটি বাড়ি নির্মাণের পেছনে জড়িয়ে থাকে হাজারও গল্প। তবে বাড়ি তৈরি করতে গিয়ে পদে পদে নানা ধরণের প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হই আমরা। এর মূল কারণ হচ্ছে সাধারণ মানুষের মাঝে বাড়ি তৈরির নিয়ম নীতি সম্পর্কে ধারণার অভাব। সেই অভাব পূরণের লক্ষ্যে যাত্রা শুরু করেছে হোম বিল্ডার্স ক্লাব। আমাদের রয়েছে একদল দক্ষ বিশেষজ্ঞ প্যানেল। এখানে আপনি একটি বাড়ি তৈরির যাবতীয় তথ্য, পরামর্শ ও সাহায্য পাবেন।

© All Rights Reserved by Home Builders Club