বিদ্যমান ভবনের কাঠামোগত অবস্থার উন্নতি করবেন যেভাবে

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

শুধুমাত্র নতুন বাড়ি তৈরিই নয়, পুরাতন বাড়ির সংস্কার, পরিবর্তন ও পরিবর্ধন ঢাকা এবং সারা বাংলাদেশেরই নির্মাণ শিল্পে অন্যতম চাহিদাজনক একটি বিষয়। প্রতি বছর প্রচুর মানুষ নিজেদের বংশ পরম্পরায় দাঁড়িয়ে থাকা বাড়িটির সংস্কারের পরিকল্পনা করেন। অর্থনৈতিক সাশ্রয়ের পাশাপাশি অনেকের কাছে কয়েক প্রজন্মের বেড়ে ওঠার স্মৃতি সংরক্ষণও থাকে বিবেচনায়।

নির্মাণ এবং সংস্কার দুটি ভিন্ন ধরনের কাজ। পরিবর্তন ও পরিবর্ধন আবার দুই ধরনের কাজের সমন্বয়। তাই এ সম্পর্কে যে অতিরিক্ত সাবধানতা ও সতর্কতার প্রয়োজন রয়েছে, সে বিষয়ে সবার অবগত থাকা উচিৎ। বাড়ির সংস্কার, পরিবর্তন ও পরিবর্ধনের জন্য সবচেয়ে দরকারি বিষয় হচ্ছে কাঠামোগত অবস্থার উন্নয়ন। এ ব্যাপারে করণীয় সম্পর্কে আসুন এক নজরে দেখে নেওয়া যাক।

সংস্কারের শুরুতে

বাড়ি সংস্কারের আগে বাড়ির নির্মাণকাল ও মূল নকশা সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে নিন। অনেক ক্ষেত্রে পুরাতন বাড়ির নকশা থাকে না বা সংগ্রহ করা সমস্যাজনক হয়ে থাকে। এ ধরনের অবস্থায় পেশাদার সার্ভেয়ার কোম্পানির সহায়তা নেওয়া অত্যাবশ্যক। মনে রাখবেন, বাড়ির কাঠামো অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিষয়। এ সম্পর্কে শতভাগ সচেতন না হয়ে কখনোই সংস্কারকাজে হাত দেওয়া উচিৎ নয়।

কাঠামোর শক্তিবৃদ্ধিতে

পুরাতন বাড়ির কাঠামো সংস্কারের জন্য প্রথমে জানতে হবে প্রাথমিক কাঠামো কীসের তৈরি। এরপর পেশাদার ও সংস্কার কাজের জন্য লাইসেন্সপ্রাপ্ত ইঞ্জিনিয়ার দিয়ে বাড়ির ভারবহন ক্ষমতা/লোড হিসেব করে নিন। লোড হিসেবের পর সবচেয়ে নিরাপদ স্থান ও সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ স্থান চিহ্নিত করবেন প্রকৌশলী। এরপর তিনি কাঠামোগত উপাদান (Structural Element) পরিবর্তন অথবা নতুন উপাদান যোগ করার বিষয়ে মতামত দিতে পারেন। সাধারণত কংক্রিট বা ইটের পুরাতন স্ট্রাকচারে স্টিলের বার দিয়ে Reinforcement দেওয়া হয়।

ভবনের বহিঃরূপ (Exterior) এবং কাঠামো সংস্কার

অনেক সময় পুরাতন ভবনের বিদ্যমান কাঠামো ভবনের ক্ষতি না করে পরিবর্তন করা কঠিন হয়। এক্ষেত্রে অনেক সময় স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়াররা ভবনের বহিঃরূপে পরিবর্তন করে কাঠামোতে অতিরিক্ত শক্তিবৃদ্ধি করেন। এই পদ্ধতিকে বলা হয় Retrofitting। এটি একই সাথে ভবনের কাঠামো শক্তিশালী করার পাশাপাশি পুরাতন ভবনের আধুনিক রূপ পরিবর্তনের কাজেও ভূমিকা রাখে। স্টিলের ডায়াগ্রিড, শিয়ার ওয়াল কিংবা অনেক ক্ষেত্রে কৌণিক সাপোর্ট দিয়েও এই কাজটি করা যায়।

ছাদের কাঠামো সংস্কার

বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই মূল ভবনের লোড নিতে উলম্ব (Vertical) উপাদানগুলোকেই মূল উপকরণ ধরা হয়, কারণ নিচতলা থেকে উপর পর্যন্ত এই উপাদানগুলোই ফাউন্ডেশন পর্যন্ত লোড নিয়ে যায়। কিন্তু ছোট পরিসরে অনুভূমিক (Horizontal) উপাদানগুলোতেও অনেক সময় সমস্যা হতে পারে। সেক্ষেত্রে নানাভাবে প্রকৌশলীরা এগুলোর সমাধান করতে পারেন। সবচেয়ে পুরাতন পদ্ধতিগুলোর একটি হচ্ছে, অতিরিক্ত একটি প্যারালাল বীম দিয়ে পুরনো বীমের বোঝা কমিয়ে দেওয়া। তবে বর্তমানে ফাইবার নির্ভর পলিমার ব্যবহারসহ ক্র্যাক দেখা দিলে বন্ধ করতে বিভিন্ন ধরনের বাইন্ডিং জেল পাওয়া যায়।

এখানে অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে যে আপনার ছাদের জন্য কোন পদ্ধতি দরকার বা ভালো হবে এটি নির্ধারণ করতে একজন অভিজ্ঞ ও প্রশিক্ষিত প্রকৌশলীই মতামত দিতে পারবেন। এছাড়া এই সমাধানগুলো পাশ করাতে হবে ভবনের পরিবর্তনের নকশাসহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ থেকে। তাই অবশ্যই এসকল সমস্যায় দক্ষ পেশাজীবির সহায়তা নিন।

কাঠামো সংস্কারের সঠিক সময়

অন্যান্য নির্মাণ কাজের মতোই বর্ষাকালে এ ধরনের সংস্কার কাজ হাতে না নেওয়াই ভালো। এছাড়া ভবনের কাঠামোতে কোনো ফাটল দেখা দিলে অবশ্যই বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিতে হবে, ভবনের বয়স যা-ই হোক না কেন। ভবনের বয়স ৩০ বছরের বেশি হলে নিয়মিত খেয়াল রাখা উচিৎ এর কাঠামোগত স্বাস্থ্যের প্রতি। ৫০ বছর বয়সী ভবনের ক্ষেত্রে নিয়মিত পরীক্ষা করানোটা দায়িত্বের পর্যায়েই পড়ে। এছাড়া কাঠামোর পাশাপাশি ফাউন্ডেশান, প্লাম্বিং এবং রিজার্ভারের অবস্থাও পরিবর্তন করা প্রয়োজন কিনা যাচাই করা উচিৎ। পানি, অযাচিত আগাছা এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগ ইত্যাদি কাঠামোর ক্ষতি করতে পারে।

বিদ্যমান ভবনের কাঠামো বৃদ্ধির সময় পুরাতন ভারবাহী উপাদানগুলির সাথে নতুন উপাদানের সমন্বয় হওয়াটাও দরকারি। এটির সাথে সাথে নতুন উপাদানগুলোর ওপর বেশি ভার দিয়ে পুরাতন উপাদানগুলোর ওপর চাপ কমানোর কাজ ও অনেক সময় প্রকৌশলীরা ভবনের আয়ুবৃদ্ধি করতে করে থাকেন। তবে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে অদক্ষ ব্যক্তিদের হাতে এ ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ কাজের দায়িত্ব না দেওয়া। প্রকৌশলীর পাশাপাশি বহিঃরূপ পরিবর্তনে স্থপতির পরামর্শ ও নেওয়া উচিৎ এবং ঠিকাদার ও মিস্ত্রীও নেওয়া উচিৎ সাধারণ কাজের চেয়ে দক্ষ এবং কৌশলী।

No comment yet, add your voice below!


Add a Comment

বাড়ি বানাতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের জন্য একটি পরিপূর্ণ ওয়েব পোর্টাল- হোম বিল্ডার্স ক্লাব। একটি বাড়ি নির্মাণের পেছনে জড়িয়ে থাকে হাজারও গল্প। তবে বাড়ি তৈরি করতে গিয়ে পদে পদে নানা ধরণের প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হই আমরা। এর মূল কারণ হচ্ছে সাধারণ মানুষের মাঝে বাড়ি তৈরির নিয়ম নীতি সম্পর্কে ধারণার অভাব। সেই অভাব পূরণের লক্ষ্যে যাত্রা শুরু করেছে হোম বিল্ডার্স ক্লাব। আমাদের রয়েছে একদল দক্ষ বিশেষজ্ঞ প্যানেল। এখানে আপনি একটি বাড়ি তৈরির যাবতীয় তথ্য, পরামর্শ ও সাহায্য পাবেন।

© 2020 Home Builders Club. All Rights Reserved by Fresh Cement