নির্মাণের সময় ভুল? যেভাবে শোধরাবেন

Share on facebook
Share on twitter
Share on linkedin

ভবন নির্মাণ করার জন্য যথেষ্ট দূরদর্শিতা প্রয়োজন, হোক সেটি বাসভবন কিংবা বাণিজ্যিক ভবন। আপনার পরিকল্পনা মুহূর্তেই বিড়ম্বনাপূর্ণ হতে পারে, যদি ভবন নির্মাণের বিভিন্ন খুঁটিনাটি সম্বন্ধে আপনি ওয়াকিবহাল না থাকেন। কাজেই নির্মাণ প্রকল্পে হাত দেওয়ার আগে সফল নির্মাণের জন্য দরকারি কিছু ব্যাপার আপনাকে মাথায় রাখতেই হবে। এই লেখায় সে বিষয়েই আলোকপাত করা হলো। 

অপর্যাপ্ত পরিকল্পনা 

ভবন নির্মাণের সাফল্য প্রধানত নির্ভর করে আপনার যথার্থ পরিকল্পনার উপরে। তাই কাজে হাত দেওয়ার আগে প্রজেক্টের বিভিন্ন ক্ষেত্র এবং চাহিদার দিকে দৃষ্টিপাত করা প্রয়োজন। যে ভবন আপনি নির্মাণ করতে চাইছেন, সেটি কী ধরনের উদ্দেশ্য মেটাবে তার দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। আর সঠিক পরিকল্পনাতে অবশ্যই একটি ভালো বাজেট প্ল্যান থাকবে, যা প্রজেক্টের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সবরকমের খরচের ক্ষেত্রে যথার্থ নির্দেশনা দেবে। 

নিজে করুন 

অনেকেই ধারণা করেন নির্মাণের কিছু ব্যাপার নিজের দায়িত্বে রাখলে সহজে বেশ সাশ্রয়ের ব্যবস্থা করা যাবে। কিন্তু এরকম কাজ করলে শুরুতে নিশ্চিতভাবে কিছু খরচ বাঁচানো গেলেও দীর্ঘমেয়াদে তা তেমন ফলপ্রসূ হবে না। তাই বাড়ি নির্মাণে একজন অভিজ্ঞ নির্মাতা নিয়োগ দেওয়া বেশ দরকারি দীর্ঘমেয়াদী সুফলের জন্য।

অপর্যাপ্ত জায়গার ব্যবস্থা 

নির্মাণের কাজে হাত দেওয়ার আগে ভূমি পরিকল্পনা এবং ডিজাইন খুবই জরুরি কাজ যেখানে নির্মাতার অনেক বেশি মনোযোগ দেওয়া প্রয়োজন। কীভাবে আপনার বাড়ির জায়গার প্রত্যেক অংশকে কাজে লাগানো যাবে অবশ্যই তা আপনার নকশাতে পূর্ণাঙ্গভাবে থাকবে। নির্মাণ চলাকালীন এসব কাজের এদিক-সেদিক করতে হলে একদিকে যেমন খরচ বাড়ে, তেমনিভাবে কাঠামোর মানেও তারতম্য চলে আসে।

সস্তা নির্মাণ সামগ্রী

যদিও সস্তা উপাদান এবং ফিটিংস ব্যবহার আপনার খরচ কমানোয় সাহায্য করে, তবে এর বিভিন্ন অপকারিতা দীর্ঘমেয়াদে অনেক অসুবিধার সৃষ্টি করে। স্বল্পমূল্যের নির্মাণ সামগ্রী এবং ফিটিংস আপনাকে শুধু ঘন ঘন মেরামত করতেই বাধ্য করবে না, সেইসাথে বসবাসকারীদের ঝুঁকির মাঝেও রাখবে।

অপর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা

নির্মাণকাজে খেয়াল রাখার ক্ষেত্রে অত্যন্ত দরকারি একটি দিক হলো আলো-বাতাসের চলাচল। বাড়ি নির্মাণের সময়ে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা রাখা অত্যাবশ্যক। কৃত্রিম আলোর পাশাপাশি ঘরে পর্যাপ্ত দরজা জানালা রাখতে হবে যাতে প্রাকৃতিক আলো ঘরে আসে। এতে বিদ্যুতের সাশ্রয় হওয়ার সাথে সাথে ভিটামিন ডি-এর ব্যবস্থাও হবে।  

নির্মাণে বিভিন্ন ভুল-ভ্রান্তির আলোচনার পর আসা যাক নির্মাণে ভুল হলে কীভাবে সে পরিস্থিতি মোকাবেলা করা যাবে সে বিষয়ে। নির্মাণাধীন কাঠামোতে ভুল ধরা পড়লে দায়িত্বের সাথে যথাসম্ভব ঠিকভাবে কাজ করার চেষ্টা রাখতে হবে। কোনো সমস্যা দেখা দিলে সমস্যার কারণ লিপিবদ্ধ করে রাখতে হবে যাতে পরবর্তীতে এর কোনো পুনরাবৃত্তি না ঘটে। নির্মাণকাজ চলাকালীন এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে সুষ্ঠু যোগাযোগ রাখতে হবে যাতে কোনো ক্ষেত্রে ভুল হলে সেটির প্রভাব অন্য ক্ষেত্রে না পড়ে। এতে করে ভুলের পরিমাণ অনেকটাই কমে যাবে। যেমন- কোনো খারাপ সামগ্রী দিয়ে কিছু জায়গার কাজ করার পর যদি তাতে সমস্যা দেখা দেয়, বা পরিকল্পনায় কোনো গরমিল হয় তবে অন্যদিকে তার প্রভাব কমানোর একমাত্র উপায় হলো ভালো যোগাযোগ রাখা। কোনো জায়গায় সমস্যা দেখা দিলে সেটির সমাধান সাথে সাথে করা না গেলেও যাতে পরবর্তীতে করা হয় সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। মেরামতির কাজ মূল্যায়নে সব পদক্ষেপ ঠিকভাবে নেয়া হয়েছে কিনা সেদিকেও আমাদের খেয়ালে রাখা উচিৎ। সবমিলিয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, নির্মাণকাজের মতো জটিল এবং দীর্ঘস্থায়ী প্রক্রিয়ায় বিঘ্ন ও দীর্ঘসূত্রিতা লঘু করতে আসলে শুরু থেকেই যতটা সম্ভব ভুল এড়ানোর চেষ্টা করতে হবে। 

No comment yet, add your voice below!


Add a Comment

বাড়ি বানাতে ইচ্ছুক ব্যক্তিদের জন্য একটি পরিপূর্ণ ওয়েব পোর্টাল- হোম বিল্ডার্স ক্লাব। একটি বাড়ি নির্মাণের পেছনে জড়িয়ে থাকে হাজারও গল্প। তবে বাড়ি তৈরি করতে গিয়ে পদে পদে নানা ধরণের প্রতিবন্ধকতার মুখোমুখি হই আমরা। এর মূল কারণ হচ্ছে সাধারণ মানুষের মাঝে বাড়ি তৈরির নিয়ম নীতি সম্পর্কে ধারণার অভাব। সেই অভাব পূরণের লক্ষ্যে যাত্রা শুরু করেছে হোম বিল্ডার্স ক্লাব। আমাদের রয়েছে একদল দক্ষ বিশেষজ্ঞ প্যানেল। এখানে আপনি একটি বাড়ি তৈরির যাবতীয় তথ্য, পরামর্শ ও সাহায্য পাবেন।

© All Rights Reserved by Home Builders Club